সংবাদ শিরোনাম

  সাকার ফাঁসি আপিল বিভাগেও বহাল  গাদ্দাফির ছেলে সাঈফের মৃত্যুদণ্ড  জেলা প্রশাসকদের সৃজনশীল হওয়ার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর  জাফরুল্লাহকে সতর্ক করে অবমাননার দণ্ড বাতিল

যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটার ডেভি ষ্টেভিনর কাছে মিশিগান বিএনপির স্বারকলিপি

www.banglakantho.com.jpeg

নির্দলীয় ও নিরপেক্ষ তত্বাবদায়ক সরকারের অধীনে সুষ্ঠ নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে মিশিগান বিএনপির পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটার ডেভি ষ্টেভিনর কাছে একটি স্বারকলিপি প্রদান করা হয়।অদ্য ৩রা মার্চ ২০১৫ইং মঙ্গলবার,যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটার ডেভি ষ্টেভিনর মিশিগান হেড অফিসে সকাল ১১টায় মিশিগান বিএনপির ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ-দেওয়ান আকমল চৌধুরী,সেলিম আহমদ ,মজ্ঞুরুল করিম তুহিন ও সাহাদৎ হোসেন মিন্টুর কাছ থেকে স্বারকলিপি গ্রহণ করেন সেনেটার ডেভি ষ্টেভিনর আঞ্চলিক পরিচালক টেরি কেম্বেল।
বাংলাদেশে চলমান রাজনৈতিক সংকট, মানবাধিকার পরিস্থিতি, বাক-স্বাধীনতা, নাগরিক অধিকার, বিচার-বহির্ভূত হত্যা ও গণতন্ত্রের ভবিষ্যত নিয়ে করণীয় এবং বর্তমান সরকারের মানবাধিকার লঙ্ঘনের সার্বিক চিত্র তুলে ধরে চলমান সংকট নিরসনে হাসিনার পদত্যাগ দাবী করা হয়।
স্বারকলিপিতে অভিযোগ করা হয়,গত বছরের ৫ জানুয়ারি যে প্রহসনের নির্বাচন হয়েছে তাতে দেশের ৯০ ভাগ মানুষেরই কোনও সমর্থন ছিল না। কিন্তু তারপরও ওরা জোর পূর্বক ক্ষমতায় বসে খুন-গুমের রাজত্ব কায়েম করেছে। এরই মধ্যে বিরোধী দলে নেতা কর্মী ও সমর্থক প্রায় ৫০ হাজারেও বেশি মানুষকে তারা বিনা মামলায় জেলে পুড়ে রেখেছে। সরকারের অন্যায় অপরাধের বিরুদ্ধে কথা বললেই তাদেরকে ক্রস ফায়ারে দেয়া হচ্ছে।
স্মারকলিপেতে বতর্মানে ২০দলীয় জোটের অবরোধ-হরতাল কর্মসূচিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের হাতে নিহত ১০৭ জনের মধ্যে ৬৭জনই বিরোধী দলের নেতাকর্মী বলে দাবি করেছে দলটি। দলটি এ হতাহতের জন্যে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের দায়া করেছে। গত ৫ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত সরকারি দল ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর হাতে দলটির ৬ হাজার কর্মী আহত হয়েছে। একই সঙ্গে বিভিন্নস্থানে পেট্রোল বোমাসহ আটক হয়েছে আ’লীগের নেতাকর্মীরা। এধরনের তথ্য দিয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে একটি প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পার্লামেন্টসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলোর কাছে। ৫ই জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া অবরোধ ও হরতালে ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ১০৭ জন নিহত হয়েছে। যার মধ্যে ৬৩ জনই বিএনপির ও জামায়াত ইসলামের নেতাকর্মী। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর আক্রমণে আহত প্রায় ৬ হাজার, এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছে ৫১ জন। বিচারবর্হিভ’ত হত্যাকা-কে বিএনপি হত্যা হিসেবে দাবি করেছে এ প্রতিবেদনে। দলটি দাবি করছে পেট্রোলবোমায় নিহত হয়েছে ৪৪ জন। পেট্রোল বোমা হামলা প্রতিরোধে সরকারের একাধিক মন্ত্রী থেকে শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধানরা বুকে গুলি করে হত্যা করার নির্দেশ দিয়েছে তাদের বাহিনীকে। পেট্রোল বোমা সহ আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর হাতে আটক হয়েছে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে নিহত বিএনপিসহ বিরোধী জোটের নিহত ও আহত নেতাকর্মীদের তালিকায় বলা হয়েছে।
স্বারকলিপিতে বাংলাদের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে যুক্তরাষ্ট্র সহ আন্তর্জাতিক কমিউনিটিকে দ্রুত আগাইয়া এসে জরুরী ভিত্তিতে পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানানো হয়।

Print Friendly

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>