Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত #  নবীগঞ্জে এমপি মিলাদ গাজীকে সংবর্ধনা #  বরগুনায় র‌্যাবের অভিযানে কারেন্ট জাল জব্দ #  বরগুনায় অস্ত্রসহ ১৪ মামলার আসামি গ্রেফতার #  রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করছে চীন : রাষ্ট্রদূত #  হোলে আর্টিজান মামলার রায় ২৭ নভেম্বর #  নবীনগরে লতিফ এমপি’র ১৮ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত #  বিএনপির চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে #  ৬০ বছরই থাকছে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স

আজ বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচ : জামথায় জমজমাট লড়াইয়ের অপেক্ষা সবার

mash-20170614194216

নাগপুর শহর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে বিদর্ভ ক্রিকেট এসোসিয়েশনের দ্বিতীয় স্টেডিয়াম। গাড়ি থেকে নামতেই মনে হলো বন আর গ্রামের মাঝে যেন দাঁড়িয়ে আছে ক্রিকেটের রাজপ্রাসাদ। ভেতরে চারতলা গ্যালারি, তার একাংশ জুড়ে মেরুন রঙের চেয়ারগুলো শোভা বাড়িয়ে দিয়েছে শতগুণ। প্রায় ৪৫ হাজার দর্শক বসতে পারেন একসঙ্গে। এক সময় এখানে কৃষকরা ফসল ফলাতেন। তাদের কাছ থেকে জমি কিনে গড়ে তোলা হয়েছে দারুণ এই স্টেডিয়াম।  যে গ্রামের নাম ‘জামথা’। তাই এই নামেই বেশি পরিচিত নাগপুরের এই স্টেডিয়ামটি।

আজ বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচে কত দর্শক হবে তার সঠিক সংখ্যা জানা যায়নি! তবে জামথায় জমজমাট লড়াইয়ের অপেক্ষা সবার। রাজকোটে যা হয়নি তার জন্য প্রস্তুত বিদর্ভ ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মঞ্চ। প্রথমবার টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের হাতছানি তাও ভারতের মাটিতে তাদেরই বিপক্ষে! এমন উত্তাপের ম্যাচের আগে টাইগার অধিনায়ককে যেন চাপ মুক্তই রাখতে চাইলেন দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। সংবাদ সম্মেলনে আসলেন নিজেই। জানালেন ভারত শক্তিশালী প্রতিপক্ষ হলেও নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে এখানেই ইতিহাস রচনা সম্ভব। তার জন্য অবশ্য নিজেদের কাজগুলো ঠিক ঠাক মতো করতে হবে বলেই জানালেন তিনি। কোচ বলেন, ‘দিন শেষে ভারত বিশ্বের অন্যতম সেরা দল। এখানে কেউ বাংলাদেশের সুযোগ দিবে না। কিন্তু যদি আমরা আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, তাহলে আমাদেরও সুযোগ থাকবে।’
হ্যা, দলের প্রধান কোচ স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছেন নাগপুরের জামথা স্টেডিয়ামকে টাইগার ক্রিকেটের অংশ বানাতে হলে আজ জয়ের বিকল্প নেই। তার জন্য খেলতে হবে নিজেদের সেরাটাই। অন্যদিকে রোহিত শর্মার ভারত কোনভাবেই জয় হাতছাড়া করতে রাজি নয়। তিনি দ্বিতীয় ম্যাচে একাই দলকে জিতিয়েছেন ব্যাট হাতে। বর্তমান বিশ্বের সেরা এই ওপেনার সবসময়ই বাংলাদেশের কঠিন প্রতিপক্ষ। তিনিই টাইগারদের বহু স্বপ্ন ভেঙে দিয়েছেন ব্যাটে ঝড় তুলে। ২০১৫ মেলবোর্নে  বিশ্বকাপের  কোয়ার্টার ফাইনাল, বার্মিংহামে ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনাল, একই মাঠে ২০১৯ বিশ্বকাপের লীগ পর্বের ম্যাচ, গত নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল, ২০১৬ এশিয়া কাপসহ প্রায় প্রতিটি ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে রোহিত ভিলেন রূপে সামনে এসেছেন। সবশেষ রাজকোটে তার ৪৩ বলে ৮৫ রানের ঝড় টাইগারদের বিপক্ষে। তবে বাংলারদেশের বিপক্ষে তার এত ভালো খেলার রহস্যটা বলতেই চাইলেন না তিনি। রোহিত বলেন, ‘যদি রহস্যটা বলেই দিই তাহলে ওরা সেটা জেনে যাবে। আমাকে আটকাতে চেষ্টা করবে। আমি এটা কিছুতেই বলতে চাই না! আমি সব প্রতিপক্ষের সঙ্গেই ভালো খেলতে পছন্দ করি। শুধু বাংলাদেশ নয়। এখানে ক্রিকেট খেলতে এসেছি। দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা অনেক সম্মানের। আমি খেলাটার সবকিছুই উপভোগ করি।’
আজ বাংলাদেশ দলে পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল সকাল থেকেই। একজন বাঁহাতি স্পিনার খেলানোর সম্ভাবনা রয়েছে আজ । তাহলে বাদ পড়বেন কে? মোসাদ্দেক নাকি আফিফ? তবে কোচ দু’জনের পক্ষেই কথা বললেন। শেষ পর্যন্ত পরিবর্তন হলে একাদশে আসতে পারেন তাইজুল ইসলাম।  পেস বোলিংটাও খুব আহামরি হচ্ছে না। কিন্তু প্রধান কোচ এই নিয়ে তেমন চিন্তিত নয় বলেই জানালেন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি না পেস বোলিং নিয়ে চিন্তা করার কিছু আছে। আমার কাছে ভয়ের বা চিন্তার কোনো  কারণ নেই।  মোস্তাফিজের জন্যও আমি চিন্তিত নই।’
বোলিং নিয়ে যেমন চিন্তা করছেন না কোচ তেমনি তার চিন্তা নেই সৌম্য সরকার ও লিটন দাসকে নিয়ে। তিনি বলেন, ‘ কেন পারছে না সম্ভবত উত্তরটা ওরা  (সৌম্য ও লিটন) দিতে পারবে। ওরা বড় স্কোরের চেষ্টা করছে। টেকনিক্যাল কোনো সমস্যা নেই। হতে পারে ইনিংসের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে কিছু  বাজে সিদ্ধান্তের জন্য ওরা আউট হয়ে যাচ্ছে। ওদের এটা নিয়ে কাজ করতে হবে। ইনিংস বড় করতে ওদের যথাযথ সিদ্ধান্ত নিতে হবে। তবে আগের ম্যাচে সবচেয়ে বড় সমস্যা ছিল কেউ ৭০ বা ৮০ রান করতে পারেনি। প্রথম ম্যাচে বড় ইনিংস খেলে দলকে টেনেছিল মুশফিক। কেউ যখন ত্রিশ পর্যন্ত যায় তার বড় ইনিংস খেলার দিকে মনোযোগ দেয়া উচিত।’

সৌজন্যে:  দৈনিক মানবজমিন

Print Friendly, PDF & Email