উইলিয়ামসকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন মাহমুদউল্লাহ

তাইজুল-মিরাজ-নাজমুলের স্পিন, আবু জায়েদের পেস সব সাবলীলভাবে খেলছিলেন শন উইলিয়ামস ও পিটার মুর। শতরানের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল জুটি। পঞ্চম উইকেটে প্রতিরোধ গড়া এই জুটি ভাঙলেন মাহমুদউল্লাহ।

নিজের দ্বিতীয় ওভারে উইলিয়ামসকে ফেরালেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। অফ স্টাম্পের একটু বাইরের বল লাফিয়ে বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে স্লিপে মেহেদী হাসান মিরাজের হাতে জমা পড়ে। ১৭৩ বলে ৯ চারে ৮৮ রান করা উইলিয়ামসের বিদায়ে ভাঙে ৭২ রানের জুটি।

৭৭ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ২০১/৫। ক্রিজে মুরের সঙ্গী রেজিস চাকাভা।

দ্বিতীয় সেশনে মাসাকাদজা-রাজার উইকেট

প্রথম সেশনে দুই উইকেট তুলে নেওয়া বাংলাদেশ দ্বিতীয় সেশনে বিদায় করেছে হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও সিকান্দার রাজাকে।

চা-বিরতিতে যাওয়ার সময় জিম্বাবুয়ের স্কোর ৬২ ওভারে ১৪৯/৪। শন উইলিয়ামস ৫৩ ও পিটার মুর ৫ রানে ব্যাট করছেন।

দ্বিতীয় সেশনে রান তোলা আরও কঠিন করে তুলেছে বাংলাদেশের বোলাররা। প্রথম সেশনে ৩১ ওভারে ৮৫ রান তুলেছিল জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় সেশনে ৩১ ওভারে তারা যোগ করতে পেরেছে ৬৪ রান।

লাঞ্চের পর প্রথম ওভারে মাসাকাদজাকে ফিরিয়ে দেন আবু জায়েদ। রাজাকে ফিরিয়ে চতুর্থ উইকেট জুটির প্রতিরোধ ভাঙেন নাজমুল ইসলাম অপু। দুই সেশনেই ভালো বোলিং করা মেহেদী হাসান মিরাজ এখনও উইকেটশূন্য। প্রথম সেশনের ২ উইকেটের সঙ্গে আর কোনো উইকেট যোগ করতে পারেননি তাইজুল ইসলাম।

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ইনিংসে উইলিয়ামসের ফিফটি

ছন্দে থাকা শন উইলিয়ামস বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ইনিংসে তুলে নিলেন ফিফটি।

বাংলাদেশের বিপক্ষে বরাবরই সফল জিম্বাবুয়ের এই বাঁহাতি মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। ওয়ানডে সিরিজে হাঁকিয়েছিলেন একটি করে সেঞ্চুরি-হাফ সেঞ্চরি।

সতর্ক ব্যাটিংয়ে ১২৪ বলে টেস্টে নিজের দ্বিতীয় ফিফটিতে পৌঁছান উইলিয়ামস। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে চারটি বাউন্ডারি। শুষ্ক, মন্থর উইকেটে জিম্বাবুয়েকে এগিয়ে নিচ্ছেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

৬১ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ১৪৬/৪। উইলিয়ামস ৫২ ও পিটার মুর ৩ রানে ব্যাট করছেন।

রাজাকে ফিরিয়ে নাজমুলের প্রথম

সিকান্দার রাজাকে ফিরিয়ে দিয়ে জিম্বাবুয়ের প্রতিরোধ ভাঙলেন নাজমুল ইসলাম অপু। বাঁহাতি এই স্পিনার নিজের চতুর্থ ওভারে পেলেন প্রথম টেস্ট উইকেট।

ভুল লাইনে খেলে বোল্ড হয়ে যান রাজা। স্টাম্প সোজা বল খেলার জন্য পা বাড়ালেও বলের লাইনে যেতে পারেননি ডানহাতি এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান।

৫২ বলে দুই চারে ১৯ রান করে রাজার বিদায়ে ভাঙে ৪৪ রানের চুতর্থ উইকেট জুটি। ৪৮ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ১২৯/৪। ক্রিজে থিতু হয়ে যাওয়া শন উইলিয়ামসের সঙ্গী পিটার মুর।

লাঞ্চের পরই মাসাকাদজাকে ফেরালেন আবু জায়েদ

লাঞ্চের পর প্রথম ওভারে আঘাত হেনেছেন আবু জায়েদ চৌধুরী। তরুণ ডানহাতি এই পেসার দারুণ এক ইনসুইঙ্গারে ফিরিয়ে দিয়েছেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে।

দুই দিকেই সুইং করাতে পারা আবু জায়েদের বোলিংয়ের মূল শক্তি। দুই দিকে মুভ করিয়ে ভোগাচ্ছিলেন জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানদের। সাফল্য এলো সেই সুইংয়েই। চমৎকার এক ইনসুইঙ্গার মাসাকাদজার ব্যাটের কানা ফাঁকি দিয়ে আঘাত হানে প্যাডে। এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে যান জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক।

১০৫ বলে দুই ছক্কা আর চারটি চারে ৫২ রান করেন মাসাকাদজা। তার বিদায়ের সময় ৩২ ওভারে জিম্বাবুয়ের স্কোর ৮৫/৩। ক্রিজে শন উইলিয়ামসের সঙ্গী সিকান্দার রাজা।

প্রথম সকালে জিম্বাবুয়ের ২ উইকেট

সিলেট টেস্টের প্রথম সেশনে দুই উইকেট হারিয়েছে জিম্বাবুয়ে। বাঁহাতি স্পিনে ব্রায়ান চারি ও ব্রেন্ডন টেইলরকে ফিরিয়ে দিয়েছেন তাইজুল ইসলাম।

লাঞ্চ বিরতিতে যাওয়ার সময় ৩১ ওভারে জিম্বাবুয়ের স্কোর ৮৫/২। হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ৫২ ও শন উইলিয়ামস ১৩ রানে ব্যাট করছেন।

চারিকে বোল্ড করে শুরুর জুটি ভাঙার পর টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান টেইলরকে দ্রুত ফেরান তাইজুল। অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ আঁটসাঁট বোলিংয়ে বেঁধে রাখেন ব্যাটসম্যানদের।

দুই অভিষিক্ত- পেস বোলিং অলরাউন্ডার আরিফুল হক ও বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু প্রথম সকালে হাত ঘুরিয়ে উইকেটশূন্য। একমাত্র বিশেষজ্ঞ পেসার আবু জায়েদের কিছু বল ভুগিয়েছে ব্যাটসম্যানদের, তবে উইকেটের দেখা পাননি তিনিও।

১২ রানের মধ্যে দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া জিম্বাবুয়েকে টানছেন মাসাকাদজা-উইলিয়ামস। স্বাগতিকদের স্পিন পরীক্ষা সামলে এরই মধ্যে জমে গেছে তাদের জুটি। লাঞ্চে যাওয়ার আগে দুই জনে যোগ করেছেন ৩৮ রান।

দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে মাসাকাদজার ফিফটি

প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি দিয়ে সফর শুরু করা হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ওয়ানডে সিরিজে ছিলেন পুরোপুরি নিষ্প্রভ। তিন ইনিংসে জিম্বাবুয়ে অধিনায়কের সর্বোচ্চ ছিল ২১। টেস্টে তার শুরুটা হল দারুণ। প্রথম সকালে দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে তুলে নিয়েছেন ফিফটি।

৩০তম ওভারে আবু জায়েদকে দারুণ এক ড্রাইভে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৯১ বলে পঞ্চাশে পৌঁছান মাসাকাদজা। টেস্টে অষ্টম ফিফটিতে যাওয়ার পথে তাইজুল ইসলামকে দুবার ছক্কায় উড়ান ডানহাতি এই ওপেনার।

৩০ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ৮৪/২। মাসাকাদজা ৫১ ও শন উইলিয়ামস ১৩ রানে ব্যাট করছেন।

টেইলরকে টিকতে দিলেন না তাইজুল

জিম্বাবুয়ের অন্যতম নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান ব্রেন্ডন টেইলরকে দ্রুত ফিরিয়ে দিলেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম।

অ্যাঙ্গেলে ভেতরে ঢোকা বল পা বাড়িয়ে ডিফেন্স করতে চেয়েছিলেন কিপার ব্যাটসম্যান টেইলর। তার ব্যাটের কানা ছুঁয়ে আসা নিচু ক্যাচ দারুণ তৎপরতায় শর্ট লেগে মুঠোয় জমান নাজমুল হোসেন শান্ত। দ্বিতীয় উইকেট হারায় অতিথিরা।

১৫ বলে ৬ রান করে ফিরে যান টেইলর। ১৭ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ৫১/২। ক্রিজে হ্যামিল্টন মাসাকাদজার সঙ্গী ছন্দে থাকা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান শন উইলিয়ামস।

প্রথম আঘাত তাইজুলের

প্রান্ত বদল করে সাফল্য পেলেন তাইজুল ইসলাম। ব্রায়ান চারিকে বোল্ড করে ভাঙলেন জিম্বাবুয়ের শুরুর জুটি।

বাঁহাতি স্পিনারের স্টাম্প সোজা ফুল লেংথ বল চারি উড়াতে চেয়েছিলেন স্লগ সুইপে। ব্যাটে খেলতে পারেননি, এলোমেলো হয়ে যার স্টাম্পস। ৩১ বলে দুই চারে ১৩ রান করা চারির বিদায়ৈ ভাঙে জিম্বাবুয়ে ৩৫ রানের ওপেনিং জুটি।

১১ ওভার শেষে জিম্বাবুয়ের স্কোর ৩৫/১। ক্রিজে অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজার সঙ্গী ব্রেন্ডন টেইলর।

মাভুটা ও ওয়েলিংটন মাসাকাদজার অভিষেক

জিম্বাবুয়ের হয়ে অভিষেক হচ্ছে লেগ স্পিনার ব্র্যান্ডন মাভুটা ও বাঁহাতি স্পিনার ওয়েলিংটন মাসাকাদজার। ওয়ানডের পর টেস্ট দলেও একাদশে জায়গা হারিয়েছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ক্রেইগ আরভিন।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: হ্যামিল্টন মাসাকাদজা, ব্রায়ান চারি, ব্রেন্ডন টেইলর, শন উইলিয়ামস, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, রেজিস চাকাভা, ব্র্যান্ডন মাভুটা, কাইল জার্ভিস, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, টেন্ডাই চাটারা।

আরিফুল-অপুর অভিষেক, ফিরলেন শান্ত

অভিষেক হচ্ছে পেস বোলিং অলরাউন্ডার আরিফুল হক ও বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর। দলে ফিরেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও ওপেনার ইমরুল কায়েস। উইকেটের পেছনে দাঁড়াবেন মুশফিকুর রহিম।

ওয়েস্ট ইন্ডিজে খেলা সবশেষ টেস্টের বাংলাদেশ দলে পরিবর্তন চারটি। চোটের জন্য স্কোয়াডেই নেই সেই ম্যাচে খেলা তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসান। দল থেকে বাদ পড়েছেন পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি ও কিপার নুরুল হাসান।

গত ফেব্রুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দেশের মাটিতে সবশেষ টেস্ট খেলেছিলেন ইমরুল। গত বছরের জানুয়ারিতে ক্রাইস্টচার্চে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল শান্তর। এরপর আর খেলার সুযোগ হয়নি তার।

ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ বলেছিলেন দুই জন করে পেসার-স্পিনার কিংবা এক পেসার-তিন স্পিনার নিয়ে খেলতে পারে বাংলাদেশ। এক পেসার-তিন স্পিনার বেছে নিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশের একাদশে একমাত্র বিশেষজ্ঞ পেসার একজন- আবু জায়েদ চৌধুরী। ওয়েস্ট ইন্ডিজে সবশেষ সফরে দুই টেস্টে ২০.৪২ গড়ে ৭ উইকেট নিয়েছিলেন এই তরুণ। চোট কাটিয়ে টেস্ট দলে ফেরা বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান থেকে গেছেন একাদশের বাইরে।

স্পিন আক্রমণে অভিষিক্ত অপুর সঙ্গী অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ও বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম।

বাংলাদেশ একাদশ: মাহমুদউল্লাহ, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, আবু জায়েদ চৌধুরী, আরিফুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাজমুল ইসলাম অপু।

টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

ওয়ানডেতে টানা তিন ম্যাচে টস হারা হ্যামিল্টন মাসাকাদজা এবার ভাগ্যকে পেলেন পাশে। টস জিতে জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক নিয়েছেন ব্যাটিং।

উইকেট বেশ শুষ্ক। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে মন্থর হবে প্রথম টেস্টের উইকেট। স্পিনাররা পাবেন সহায়তা। তাই টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিতে দুবার ভাবতে হয়নি মাসাকাদজাকে।

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ জানান, টস জিতলে ব্যাটিং নিতেন তিনিও।

জয় দিয়ে শুরু চায় বাংলাদেশ

দেশের কোনো ভেন্যুর অভিষেক টেস্ট জয় দিয়ে রাঙাতে পারেনি বাংলাদেশ। সেই আক্ষেপ এবার দূর করতে চান মাহমুদউল্লাহ। সিলেটে হারাতে চান জিম্বাবুয়েকে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের প্রথম টেস্ট শুরু হবে সকাল সাড়ে নয়টায়। শহরের লাক্কাতুরায় চা বাগানের কোলে নান্দনিক সৌন্দর্য আর সবুজ গ্যালারির জন্য স্বতন্ত্র এই স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হবে ঘণ্টা বাজিয়ে।

দেশের অষ্টম টেস্ট ভেন্যুতে মাহমুদউল্লাহ ও হ্যামিল্টন মাসাকাদজা টস করবেন স্মারক মুদ্রা দিয়ে। লাল গালিচা সংবর্ধনা পাবেন দুই দলের ক্রিকেটাররা। ম্যাচ শুরুর আগের উৎসবের এই আমেজ শেষ পর্যন্ত ধরে রাখতে চায় বাংলাদেশ। জয় দিয়ে সিরিজ শুরুর সঙ্গে পরের ম্যাচের একাদশে পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগটা তৈরি করতে চান মাহমুদউল্লাহ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে টানা পঞ্চম জয়ের হাতছানি

ওয়ানডের মতো টেস্টেও বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি জয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। দুই দলের লড়াই যেন একপেশে হয়ে গেছে ইদানিং। সবশেষ ১৩ ওয়ানডেতে জিতেছে বাংলাদেশ। টানা পঞ্চম টেস্ট জয়ের লক্ষ্য নিয়ে মাঠে নামছে তারা।

২০১৩ সালে হারারেতে সিরিজের প্রথম টেস্টে হেরেছিল বাংলাদেশ। একই ভেন্যুতে পরের ম্যাচে জিতে সমতায় সিরিজ শেষ করে তারা। পরের বছর দেশের মাটিতে তিন ম্যাচের সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করে মুশফিকুর রহিমের দল।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দেশের মাটিতে টানা তৃতীয় সিরিজ জয়ের হাতছানি বাংলাদেশের সামনে। তাদের এই চ্যালেঞ্জ জিততে হবে দলের সেরা দুই ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালকে ছাড়া।

মাহমুদউল্লাহ জানান, তাদের অনুপস্থিতি দারুণভাবে অনুভব করবেন তিনি। তবে একই সঙ্গে দলের অন্য সবার নিজেকে মেলে ধরার জন্য তাদের না থাকাকে খুব ভালো সুযোগ হিসেবে দেখেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *