Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  বিশ্বের সবচেয়ে ‘হ্যান্ডসাম’ হৃতিক রোশন #  স্বর্ণের দাম বাড়ছে ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা #  অতিরিক্ত ডিআইজি হলেন ২০ পুলিশ কর্মকর্তা #  সিপিডি’র ভবনে এডিসের লার্ভা #  মন্ত্রণালয়গুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে প্রকল্প গ্রহণের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর #  বাস-সিএনজি সংঘর্ষে একই পরিবারের ৬ জনসহ নিহত ৮ #  বাবার কিনে দেয়া মোটর সাইকেল কেড়ে নিল ছেলের প্রাণ #  জি এম কাদেরকে বিরোধী দলের নেতা করার দাবি #  তরঙ্গ পত্রিকা পাঠক ফোরামের উদ্যোগে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত #  বিএনপি’র হাত ধরেই ‘জঙ্গিবাদের’ উত্থান : হানিফ

একটি মশার খুজে : এম এ মজিদ

m-a-majid

যখন দেখি মন্ত্রী এমপি সিটি কর্পোরেশনের মেয়ররা একটি মশার খুজে দা লাঠি ফিকল ঝাড়– নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়েছেন তখন হাসি আর ধরে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি কিংবা এফডিসির নায়ক নায়িকাদের মশা মারতে অস্ত্র হাতে মাঠে নামার দৃশ্যও বেশ উপভোগ্য। পরিচ্ছন্ন রাস্তায় ঝাড়– নিয়ে যারা ফটোসেশন করেছেন তাদেরকে কিভাবে ধিক দেয়া যায় সে ভাষা আমাকে শিখতে হবে সেফু দার কাছ থেকে। এতোগুলো প্রাণের সাথে যারা মশকরা করেছে এবং পরিচ্ছন্ন রাস্তায় ঝাড়– দেয়ার ভিডিও এবং স্থির চিত্র যারা গুরুত্ব দিয়ে পত্রিকায় ও টিভি মিডিয়ায় প্রচার করেছে তাদেরকেও নূন্যতম একটা শাস্তির আওতায় আনা সময়ের দাবী। আমি মনে করি মৃত্যুর বেলায় ভিআইপি মৃত্যু, সম্ভ্রান্ত পরিবারের সদস্যের মৃত্যু ইত্যাদি বিশেষনের কোনো সুযোগ নেই। মৃত্যু মৃত্যুই। প্রত্যেকটি মৃত্যু একেকটি পরিবারের অপুরনীয় ক্ষতি। ক্ষেত্র বিশেষে এর পিছনে পড়ে থাকবে দীর্ঘ মেয়াদী কষ্টের নিদারুন কাহিনী। এসআই কহিনুর আক্তারের মৃত্যুকে আপনি কিভাবে দেখবেন। তার দেড় বছরের সন্তানের জায়গায় আপনার একটি সন্তানকে রাখেন, কিংবা চাদপুরের মতলবের নার্সারীর ছাত্রী শিশুর মৃত্যুকে উপলব্দি করেন, কিংবা অতিরিক্ত আইজিপির স্ত্রীর মৃত্যুকে আপনি অনুধাবন করেন, সিভিল সার্জনের মৃত্যুকে আপনি কল্পনা করেন, এসবের মৃত্যুর সাথে আপনি কি পারবেন ঝাড়– নিয়ে রাস্তায় মশা মারার মতো মশকরা করতে? আমি জীবনেও শুনিনি ঝাড়– দিয়ে মশা মারা যায়। কেউ মেরেছে বলেও জানি না। আমি চেষ্টা করেও বাসায় ঝাড়– দিয়ে মশা মারতে পারিনি। ঝাড়– দিয়ে রাস্তায় কিংবা ঝুপঝাড়ে বারি দিয়ে আপনি মশা মারতে পারবেন? এমন কান্ডজ্ঞানহীন মানুষ গুলো যখন জোরেবলে কৌশলে ছলনায় মিথ্যা ও ধোকার আশ্রয় নিয়ে আপনার মাথার উপরে বসে পড়বে আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন অন্তত তাদের দ্বারা সমাজের কিংবা আপনার কোনো উপকার হবে না। দেশের উন্নয়ন হচ্ছে তাই ডেঙ্গু মশা বাংলাদেশে এসেছে, ডেঙ্গু মশার প্রজনন ক্ষমতা রুহিঙ্গাদের চেয়েও পাওয়ারপুল, ডেঙ্গু মশার হাত থেকে বাচতে দিনে রাতে ইমাম মোয়াজ্জিনের মতো পায়জামা পানজাবী পড়ার আহবান ইত্যাদি বচন আপনি কিভাবে দেখবেন? কোন মহাসাগরসম জ্ঞানী তারা? শাইখ সিরাজের বাজার এখন মন্দা। ছাদ কৃষির বারোটা বাজিয়েছে অভিজাত মশা। অনেকেই ছাদে কিংবা বাসার বিভিন্ন জায়গায় লাগানো গাছগাছালি কেটে ফেলেছেন। এ নিয়ে দু চারটি পরিবারে গৃহকর্তা ও গৃহীনির ঠান্ডা যুদ্ধের কথা আমরা জানি। মশার কামড়ে মরতে রাজি তারপরও ছাদ কৃষি, টব কৃষি, বালতি কৃষি, ড্রাম কৃষি ছাড়তে রাজি না এমন গৃহীনির সংখ্যাও কম নয়। একেকটি উপদ্রুব আমাদেরকে স্মরণ করিয়ে দেয় যে, আমরা কত অসংলগ্ন কথাবার্তা বলতে পারি। ডেঙ্গু মশার উপদ্রুব এর অন্যতম। ডেঙ্গু মশা নিয়ে যা প্রচার করা হচ্ছে তার চেয়ে পরিস্থিতি বহুগুন বেশি খারাপ বলে মন্তব্য করেছেন এডভোকেট নিগার আহমেদ। ডেঙ্গু নিয়ে করুণ অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন ইউএনও মাহমুদুল হক। অতি জরুরী প্রয়োজনে স্ত্রী ঢাকায় ঈদ করতে গেলেও নিজের শিশু সন্তানকে ডেঙ্গু আতংকে ঢাকায় না পাঠিয়ে সিলেটে রেখে বাপ বেটির ঈদ করার কথা বলেছেন ডাক্তার নজরুল কনক। ঈদে ঢাকাবাসীকে গ্রামে না ফেরার কথা ইশারায় ইঙ্গিতে বলে আসছেন স্বজনরা। খোদ প্রধানমন্ত্রী ডেঙ্গু টেষ্ট ক‌রে ঈ‌দে বা‌ড়ি‌তে যে‌তে সবার প্র‌তি আহবান জা‌নি‌য়ে‌ছে।কতটা ভয়াবহ, কতটা উৎকন্ঠার মধ্য দিয়ে দেশ যাচ্ছে। ঠিক এই সময়ে মশা মারা নিয়ে মশকরা করা, ফটোসেশন করা কতটা অভদ্রোচিত আচরণ তা ভুক্তভোগী ছাড়া কে বুঝবে। তাদেরকে নিজ নিজ পদ থেকে বহিস্কার করা উচিত। ডেঙ্গু মশার খোজ না নিয়ে তাদেরকে খুজে খুজে বের করা উচিত এবং ঝাড়– দিয়ে সমাজের ক্ষতিকর কীট ও আগাছা হিসাবে তাদেরকেই পরিস্কার করা উচিত যারা মশা মারা নিয়ে মশকরা করেছে, মৃত্যুগুলোর সাথে উপহাস করেছে, ডেঙ্গু উপদ্রুবের মতো প্রাকৃতির দুর্যোগ নিয়ে জ্ঞানহীন কথাবার্তা বলেছে।
-লেখকঃ আইনজীবী ও সংবাদকর্মী
হবিগঞ্জ ৯ আগষ্ট ২০১৯
০১৭১১-৭৮২২৩২

Print Friendly, PDF & Email