Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত #  নবীগঞ্জে এমপি মিলাদ গাজীকে সংবর্ধনা #  বরগুনায় র‌্যাবের অভিযানে কারেন্ট জাল জব্দ #  বরগুনায় অস্ত্রসহ ১৪ মামলার আসামি গ্রেফতার #  রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করছে চীন : রাষ্ট্রদূত #  হোলে আর্টিজান মামলার রায় ২৭ নভেম্বর #  নবীনগরে লতিফ এমপি’র ১৮ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত #  বিএনপির চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে #  ৬০ বছরই থাকছে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স

তালিকায় দেড় হাজার অনুপ্রবেশকারী

197410_anu

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সামপ্রদায়িক অপশক্তি ছাড়া অন্যান্য রাজনৈতিক দলের ক্লিন ইমেজের লোক আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী নয়, তাদের আমরা স্বাগত জানাই। প্রধানমন্ত্রী নিজের তত্ত্বাবধানে অনুপ্রবেশকারী ১৫শ’ জনের তালিকা তৈরি করেছেন। সড়ক-মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই এখন আমাদের লক্ষ্য ও চ্যালেঞ্জ।  সড়ক নিরাপত্তায় আমরা আটঘাট বেঁধেই নেমেছি। তিনি শুক্রবার সকালে গাজীপুরের সফিপুরে ঢাকা- টাঙ্গাইল মহাসড়কে  নির্মাণাধীন উড়াল সড়ক নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

সড়ক মন্ত্রী আরো বলেন, সামপ্রদায়িক শক্তি থেকে যারা আসে, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, চিহ্নিত ভূমিদস্যু, যাদের ইমেজ খারাপ, যাদের রাজনীতি জনগণের কাছে খারাপ, এই ধরনের লোকজনই হলো অনুপ্রবেশকারী। প্রধানমন্ত্রী নিজের তত্ত্বাবধানে ১৫শ’ জন অনুপ্রবেশকারীর তালিকা তৈরি করেছেন এবং তার কাছে এই তালিকা আছে। তালিকাটি তিনি আমাদের পার্টি অফিসে পাঠিয়ে দিয়েছেন। সেই তালিকা বিভিন্ন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্তদের কাছে পাঠিয়ে দিচ্ছি। সারা দেশে এখন যে সম্মেলন হচ্ছে, এই সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন একটি নেতৃত্ব আসবে।

এই নেতৃত্বে যাতে অনুপ্রবেশকারী বা বিতর্কিত বা অপকর্মকারী লোকজন আওয়ামী লীগের কোন পর্যায়ের নেতৃত্বে না আসতে পারে। যারা ভালো মানুষ, শিক্ষিত মানুষ, জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য তারা যাতে দলের নেতৃত্বে আসতে পারে।

সড়কের শৃঙ্খলাটা বড় সংকট বলে মন্তব্য করে সড়ক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরো বলেছেন, সড়ক-মহাসড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই আমাদের লক্ষ্য। এটা আমাদের চ্যালেঞ্জ। সড়ক পরিবহনের নতুন আইনটাও সেই জন্যই করা হয়েছে। বিশ্বব্যাংকও একটি প্রকল্প দিচ্ছে। সড়ক নিরাপত্তায় এখন আমরা আটঘাট বেঁধেই নেমেছি। অবকাঠামোগত সমস্যা কোথাও নেই। উন্নয়ন যথেষ্ট হয়েছে। শৃঙ্খলা না থাকলে এই উন্নয়নের কোনো দাম নেই। তাই শৃঙ্খলাটা এখন বড় সংকট।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, গাজীপুর জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম, পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, পিপিএম, সড়ক ও জনপথ বিভাগের ঢাকা সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুর সওজের নির্বাহী  প্রকৌশলী মো. সাইফুদ্দিনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন

 

Print Friendly, PDF & Email