Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত #  নবীগঞ্জে এমপি মিলাদ গাজীকে সংবর্ধনা #  বরগুনায় র‌্যাবের অভিযানে কারেন্ট জাল জব্দ #  বরগুনায় অস্ত্রসহ ১৪ মামলার আসামি গ্রেফতার #  রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করছে চীন : রাষ্ট্রদূত #  হোলে আর্টিজান মামলার রায় ২৭ নভেম্বর #  নবীনগরে লতিফ এমপি’র ১৮ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত #  বিএনপির চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে #  ৬০ বছরই থাকছে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স

প্রমত্তা মেঘনার ভাঙ্গনে বিলীন ৩ জেলার বিস্তির্ণ এলাকা

03-11-19

সঞ্জয় শীল, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) ঃ প্রমত্তা মেঘনার ভাঙ্গনে বিলীন হচ্ছে গত ৫ বছরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলা সহ তিনটি জেলার ১৫৪ কিলোমিটার এলকা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া ,কিশোরগঞ্জের (ভৈরব ) , নরসংদী এলাকার এই খেলা চলছে গত ৪০ বছর ধরে। প্রতি বছর ২/১ টি গ্রাম গ্রাস করে চলছে সর্বগ্রাসী মেঘনা। বাড়ছে উদ¦াস্ত ও ছিন্নমূল মানুষের সংখ্যা। মেঘনার ভাঙ্গনে সর্বস্ব হারিয়ে খোলা আকাশের  নিচে মানবতর জীবন যাপন করছে অসংখ্য পরিবার। ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলায় ভাঙ্গনের শিকার হচ্ছে-বাইমোজা, দাসকান্দি,নজর দৌলত , কেদেরখোলা, চর কেদেরখোল,চিত্রি, নয়াহাটি, নাছিরাবাদ, মানিকনগর ,বড়িকান্দি,নূরজাহানপুর, ধরাভাঙ্গা, সোনাবালুয়া ও সলিমগঞ্জ ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রাম সহ হাজার হাজার ফসলী জমি। বাঞ্ছারামপুর উপজেলার উজানচর,উলুকান্দি,পশ্চিম দরিয়া দৌলত, তেজখালী ও মরিচাকান্দি ইউনিয়নে ৮ টি গ্রামের অস্তিত¦ বর্তমানে চরম হুমকির মুখে। নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলার মির্জাচর, মুজিবপুর, সওদাগরকান্দি. কালিকাপুর,  চান্দেরচর.চরমধুয়া ও নিলক্ষি ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে গত কয়েক বছরে অন্তত কয়েক হাজার অধিবাসীর বাড়ী -ঘড় বিলীন হয়ে গেছে। নরসিংদী জেলার ভাঙ্গনের শিকার হচ্ছে- করিমপুর,নজরপুর, চরজলদী, আলোকপুর ইউনিয়নের ১৫ টি গ্রামের হাজার হাজার পরিবেিরর ভিটা মাটি নদীগর্ভে নিঃস্ব হয়েছে । উক্ত পরিবার গুলো আজ বহু কষ্টে দিন যাপন করছে। প্রতি বর্ষা মৌসুমে এই ভাঙ্গনের ভয়াবহতা চরম আকার ধারন করে। মেঘনার ভাঙ্গনের সরকারের দৃষ্টি অকর্ষণ সহ জরুরী প্রদক্ষেপ সহ নদীর তীরবর্তী পরিবরিগুলোর  পূন:বাসন জরুরী। নদীর তীরবতী  পরিবরিগুলির বহুবার আবেদন করলে ও তার কোন ফলাফল হয়নি। বর্তমান  ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ এবাদুল করিম বুলবুলের উদ্যোগে সম্প্রতি পানি সম্পদ প্রতি মন্ত্রী ওমর ফারুক নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করার পর একনেকের সভায় নবীনগর উপজেলার দুটি ইউনিয়নের মানিকনগর ,বড়িকান্দি,নূরজাহানপুর, ধরাভাঙ্গা, সোনাবালুয়া ও সলিমগঞ্জের ভাঙ্গন রোধে ৭১,০৯,৯৫,০০০ (একাত্তর কোটি নয় লক্ষ পঁচানব্বই হাজার টাকা) বরাদ্ধ দেয়া হয়। উক্ত বরাদ্ধের জন্য স্থানীয় সাংসদ আলহাজ¦ এবাদুল করিম বুলবুল মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ও পানি সম্পদ প্রতি মন্ত্রী ওমর ফারুককে অভিন্দন জানান ।

Print Friendly, PDF & Email