#  মানুষের দুর্ভোগে অযথা দাম বাড়িয়ে মুনাফা নেয়া অমানবিক : প্রধানমন্ত্রী #  করোনা পরিস্থিতি এখন বেশি ভয়ঙ্কর : মির্জা ফখরুল #  দেশে আরো দুজন করোনায় আক্রান্ত #  নবীগঞ্জে রামদা চাইনিজ কুড়ালসহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার #  নবীগঞ্জের শ্রীমতপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়ীঘরে হামলা #  নবীগঞ্জে ত্রাণবিতরনে উপজেলা প্রশাসনকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আর্থিক সহযোগীতা #  লকডাউনই আমাদেরকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন থেকে রক্ষা করতে পারে : এমপি মজিদ খাঁন #  বানিয়াচংয়ে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর যৌথঅভিযান ॥ ৭ জনকে অর্থদন্ড #  বানিয়াচংয়ে প্রশাসনের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ #  করোনা: ক্ষতি পোষাতে তামাকপণ্যের দাম বাড়ান জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে আত্মা’র তামাক-কর ও দাম বৃদ্ধি বিষয়ক বাজেট প্রস্তাব #  করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় বানিয়াচংয়ে প্রশাসনের উদ্যোগে এমপি মজিদ খানের ত্রাণ বিতরণ #  আজমিরীগঞ্জে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর সমন্বয়ে টাস্কফোর্সের অভিযান #  করোনা পরিস্তিতে শাল্লায় চলছে মডেল মসজিদ নির্মান,অনিয়মের অভিযোগ #  করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শাল্লায় সেনাবাহিনীর টহল #  নবীগঞ্জে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এএসপির অভিযান #  বানিয়াচংয়ে করোনা প্রতিরোধে করনীয় বিষয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রচারণা

বাদুড় থেকে করোনাভাইরাসের বিস্তার

Badur

বাংলা কন্ঠ ডেস্কঃ চীনে বাদুড় থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। গত সোমবার এ বিষয়ে দু’টি গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে ‘নেচার’ সাময়িকীতে। এসব গবেষণায় দেখা গেছে, সার্স (সেভার অ্যাকিউট রেসপিরেটরি সিনড্রোম) ভাইরাসের মতো করোনাও বাদুড় থেকে ছড়িয়েছে।

প্রথম গবেষণাটি করেছেন, চীনের ফুদান ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ইয়ং জেন জং ও তার এক সহকর্মী। তারা গবেষণার জন্য এক রোগীর ফুসফুস থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন। ওই রোগী গত ২৬ ডিসেম্বর জ্বর-কাশির লক্ষণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। ওই রোগী সাউথ চায়না সিফুড হোলসেল মার্কেটে কর্মরত ছিলেন। ওই ব্যক্তি থেকে নেয়া নমুনা বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সার্স ভাইরাসের সাথে করোনাভাইরাসের মিল রয়েছে। এই করোনার জিনোমে সিকুয়েন্সের সাথে সার্সের জিনোম সিকুয়েন্সের ৮৯ দশমিক ১ শতাংশ মিলে গেছে। এর আগে চীনে ২০০৩ সালে সার্স ছড়িয়ে পড়েছিল, যা ছড়িয়েছিল বাদুড় থেকে। ’

‘নেচারু’এ প্রকাশিত অপর গবেষণাও বলা হয়, গবেষকেরা তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখেছেন এই ভাইরাসটি বাদুড় থেকেই ছড়িয়েছে। এটি সার্স ভাইরাসের অনুরূপ ভাইরাস।

গত ডিসেম্বরে উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির গবেষক জেং লি শি ও তার এক সহকর্মী এই ভাইরাসটি সম্পর্কে প্রথম প্রতিবেদন দেন। তারা মোট সাতজনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে গবেষণা চালিয়েছিলেন। এর মধ্যে ছয়জনই ওই সিফুড মার্কেটে (সাউথ চায়না সিফুড হোলসেল মার্কেট) কাজ করতেন। এরা সবাই মারাত্মক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ছিলেন।

জিং লিয়েদের গবেষণায় উঠে এসেছে, তারা যেসব ব্যক্তির নমুনা নিয়ে গবেষণা করেছেন তাদের প্রত্যেকের ভাইরাসের সাথে প্রত্যেকের ভাইরাস ৯৯ দশমিক ৯ ভাগ মিলে গেছে। এ ছাড়া নতুন প্রাপ্ত এই ভাইরাসের সাথে সার্সের ৭৯ দশমিক ৫ শতাংশ মিল রয়েছে।

মার্কিন বিশেষজ্ঞদের প্রবেশের অনুমতি

এ দিকে রয়টার্স জানায়, দ্রুত সংক্রামক নভেল করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে মার্কিন বিশেষজ্ঞদের প্রবেশের অনুমতি দিতে সম্মত হয়েছে চীন। প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান হারে বাড়ার মধ্যে বেইজিং এ সিদ্ধান্ত নিলো।

গত সোমবার একদিনেই চীনের মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই প্রদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন দুই হাজার ৩৪৫ ব্যক্তিকে শনাক্ত করা হয়, এ দিন মৃত্যু হয় ৬৪ জনের। এদিন হোয়াইট হাউজ জানায়, উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণা ও সংক্রমণ মোকাবেলায় সহযোগিতার অংশ হিসেবে চীন ডব্লিউএইচওর মিশনের আওতায় মার্কিন গবেষকদের তাদের দেশে যাওয়ার প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে। সূত্র : ভয়েস অব আমেরিকা।

Print Friendly, PDF & Email