Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  বিশেষ সুবিধায় খেলাপি ঋণ নবায়ন আবেদনের সময় বাড়ছে #  অনুমতি না পাওয়ায় ভোলায় আজকের সমাবেশ স্থগিত #  ভোলায় নিহত ৪, পরিস্থিতি এখনো থমথমে #  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের আন্দোলন : কঠোর অবস্থানে মন্ত্রণালয় #  ভোলার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন ও পুলিশের বক্তব্য #  ঢাবি অ্যালামনাই এসোসিয়েশনে কেন যেতেন জি কে শামীম #  পদ হারালেন ওমর ফারুক #  ডিআইজি প্রিজন বজলুর রশীদ কারাগারে #  গণভবনে প্রবেশের সুযোগ পাননি যুবলীগের শীর্ষ ৪ নেতা #  ভাঙ্গা ঘরে চাদের আলো মাহেন্দ্র চালকের মেয়ে ‘কনা’ পেয়েছেন মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ

বানিয়াচংয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ইজারার টাকা আত্মসাৎ ও অবৈধভাবে টোল আদায়ের অভিযোগ

34 x 42

বানিয়াচং(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধি ॥ হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে খেয়াঘাটের  ইজারামূল্যের টাকা আত্মসাৎ ও অবৈধভাবে টোল আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
বানিয়াচং উপজেলার বানিয়াচং কাদিরগঞ্জ সড়কের মরা কুশিয়ারা নদীর খেয়াঘাটের ইজারামূল্যের টাকা আত্মসাৎ করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান।
এব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা প্রশাসন থেকে বারবার তাগাদা দেওয়া হলেও চেয়ারম্যান টাকা জমা দিচ্ছেন না।
অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের নাম এরশাদ আলী । তিনি বানিয়াচং ৬নং কাগাপাশা ইউপি’র চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক।
হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয়ের ১সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং তারিখের ১৯-১৩(২)নং স্মারক সূত্রে জানা যায়,বানিয়াচং কাদিরগঞ্জ সড়কের মরা কুশিয়ারা নদী পারাপারের জন্য সৃজিত খেয়াঘাট ২০১৫ইং হইতে ২০১৭ইং পর্যন্ত মোট তিন বৎসর যাবৎ বিধি বহির্ভূতভাবে ইজারা দিয়ে অর্থ আদায় করছেন চেয়ারম্যান এরশাদ আলী। এবং আদাকৃত টাকা সরকারের কোষাগারে জমা করছেন না।
উক্ত স্মারকে আরও উল্লেখ করা হয় যে, উল্লেখিত তিন বৎসরে ইজারা বাবত ৮লক্ষ ২৩ হাজার টাকা আদায় করেছেন যা সরকারের কোষাগারে জমা করা হয় নাই।
উল্লেখিত স্মারকের পত্রপ্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে টাকা জমা দেওয়ার কথা থাকলেও চেয়ারম্যান ঐ টাকা এখনও জমা করেন নাই।
এছাড়াও বর্তমানে ইজারা বহির্ভূতভাবে টোল আদায়ের অভিযোগে গতকাল (৭/১০/২০১৯ইং) সোমবার গ্রামবাসী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ প্রদান করেছেন।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশ না করার শর্তে গ্রামবাসী জানান, যুবলীগের প্রভাব খাটিয়ে চেয়ারম্যান ধরাকে সরা জ্ঞান করছেন। দলীয় প্রভাব খাটিয়ে বিভিন্ন জায়গায় দৌড়ঝাপ শুরু করছেন।
এ ব্যপারে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান এরশাদ আলী জানান, আমি ইজারা দেই নাই। এটা এলাকাবাসী জানেন।
এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মামুন খন্দকার জানান, বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ অবগত। এব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্র্তৃপক্ষ আইনগত ব্যাবস্থা নিবেন।

Print Friendly, PDF & Email