#  মানুষের দুর্ভোগে অযথা দাম বাড়িয়ে মুনাফা নেয়া অমানবিক : প্রধানমন্ত্রী #  করোনা পরিস্থিতি এখন বেশি ভয়ঙ্কর : মির্জা ফখরুল #  দেশে আরো দুজন করোনায় আক্রান্ত #  নবীগঞ্জে রামদা চাইনিজ কুড়ালসহ ৩ ডাকাত গ্রেফতার #  নবীগঞ্জের শ্রীমতপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাড়ীঘরে হামলা #  নবীগঞ্জে ত্রাণবিতরনে উপজেলা প্রশাসনকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আর্থিক সহযোগীতা #  লকডাউনই আমাদেরকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমন থেকে রক্ষা করতে পারে : এমপি মজিদ খাঁন #  বানিয়াচংয়ে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর যৌথঅভিযান ॥ ৭ জনকে অর্থদন্ড #  বানিয়াচংয়ে প্রশাসনের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ #  করোনা: ক্ষতি পোষাতে তামাকপণ্যের দাম বাড়ান জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে আত্মা’র তামাক-কর ও দাম বৃদ্ধি বিষয়ক বাজেট প্রস্তাব #  করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় বানিয়াচংয়ে প্রশাসনের উদ্যোগে এমপি মজিদ খানের ত্রাণ বিতরণ #  আজমিরীগঞ্জে প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর সমন্বয়ে টাস্কফোর্সের অভিযান #  করোনা পরিস্তিতে শাল্লায় চলছে মডেল মসজিদ নির্মান,অনিয়মের অভিযোগ #  করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শাল্লায় সেনাবাহিনীর টহল #  নবীগঞ্জে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এএসপির অভিযান #  বানিয়াচংয়ে করোনা প্রতিরোধে করনীয় বিষয়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রচারণা

শাল্লার দাঁড়াইন নদী অবমুক্ত রাখতে জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন

sunamgan-2-696x346
বকুল আহমেদ তালুকদার, সুনামগঞ্জ : শাল্লা উপজেলায় বয়ে যাওয়া দাঁড়াইন নদী অবমুক্ত রাখার দাবীতে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত আবেদন দিয়েছেন শাল্লাবাসী। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে বিভিন্ন গ্রামের ১শ’ ৭৬ জনের স্বাক্ষরিত এলাকাবাসীর পক্ষে আবেদনটি দেন শাল্লা উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুস সাত্তার মিয়া।
আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, দেশের সৃষ্ট জলমহাল সমূহ জাতীয় মৎস্য সম্পদ বৃদ্ধির অন্যতম ক্ষেত্র। পাশাপাশি সরকারি রাজস্ব আদায় ও জাতীয় রাজস্ব বৃদ্ধির পন্থাও বটে। সরকারি জলমহাল নীতিমালায় হ্রদ, বিল, ডোবা প্রভৃতি সরকারি জলাশয় ইজারার আওতায় রাখা হলেও দেশের চলতি নদ-নদী সমুহ উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। কিন্তু শাল্লা উপজেলার দাঁড়াইন নদীর কিছু অংশ উন্মুক্ত থাকলেও কিছু অংশ ইজারা প্রদান করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, ইজারাদারগন নদী শাসন করতে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের উপর বিরূপ ক্ষমতা প্রয়োগ করছেন।
এ বিষয়ে আবেদনকারী মোঃ আব্দুস সাত্তার মিয়া বলেন, দাঁড়াইন নদীর ১ ও ৩নং খন্ড উন্মুক্ত থাকলেও ২য়, ৪র্থ ও ৫মখন্ড ইজারাধীন থাকায় নৌকা চলাচলে ও নদী ব্যবহার করতে স্থানীয় লোকজন নানা সমস্যায় রয়েছে। এমনকি নদী ইজারার ফলে স্থানীয় লোকজন মাছ আহরণ থেকেও বঞ্চিত রয়েছেন। তাই নৌকা চলাচলের সুবিধার্থে দাঁড়াইন নদী উন্মুক্ত রাখার দাবীতে শাল্লাবাসীর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত আবেদন দিয়েছি।
এব্যপারে জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ বলেন, অভিযোগটি হয়তো ফ্রন্টডেস্ক শাখায় দেয়া হয়েছে। আমার হাতে এখনো আসেনি। আবেদনটি হাতে আসলে বিবেচনা করে একটা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
Print Friendly, PDF & Email