Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!
 #  আমিরাতের শ্রমবাজার খুলে দেয়ার ইঙ্গিত #  নবীগঞ্জে এমপি মিলাদ গাজীকে সংবর্ধনা #  বরগুনায় র‌্যাবের অভিযানে কারেন্ট জাল জব্দ #  বরগুনায় অস্ত্রসহ ১৪ মামলার আসামি গ্রেফতার #  রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করছে চীন : রাষ্ট্রদূত #  হোলে আর্টিজান মামলার রায় ২৭ নভেম্বর #  নবীনগরে লতিফ এমপি’র ১৮ তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত #  বিএনপির চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে #  ৬০ বছরই থাকছে মুক্তিযোদ্ধাদের অবসরের বয়স

শিক্ষার্থী তানভীর হত্যাকারীর শাস্তির দাবীতে উত্তাল বানিয়াচং

baniyachong p000

জীবন আহমদ লিটন,বানিয়াচং (হবিগঞ্জ) ॥ বানিয়াচংয়ে মাইক্রোবাস চাপায় স্থানীয় এএইচএম কিন্ডার গার্টেনের প্লে গ্রুপের ৬ বছর বয়সের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার তানভীরকে হত্যাকারী ড্্রইভারের শাস্তির দাবীতে উত্তাল হয়ে উঠেছে বানিয়াচং। স্থানীয় সাগর দিঘীর উত্তর পাড়ের ড্রাইভার জুনুর পুত্র ঘাতক ড্রাইভার সাদ্দামের ফাঁসির দাবীতে প্রতিবাদী জনতা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বৃহস্পতিবার দুুপুর ১২ টায় স্থানীয় গরীব হোসেন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে।
ম।নববন্ধন পরবর্তী বিক্ষোভ মিছিল শেষে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ওয়ারিশ উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী মোত্তাকিন বিশ^াস, উপজেলা আওয়ামীলীগের জয়েন্ট সেক্রেটারী মোঃ আঙ্গুর মিয়া, মোশারফ হোসেন,গরীব হোসেন সরকারী প্রাইমারী বিদ্যারয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আওলাদ মিয়া, কিন্ডার গার্টেনের পরিচালক হেলিম মিয়া প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন এলাকার সর্বস্তরের জনগণ ও শত শত কোমলমতি শিক্ষার্থীবৃন্দ।
বক্তারা বলেন ড্্রাইভার ইচ্ছা করে শিশুটিকে হত্যা করেছে। এটা কোন দূর্ঘটনা নয়। তাই ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঘাতক ড্রাইভারকে গ্রেফতার না করলে আরও কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী উচ্চারণ করা হয়।
উল্লেখ্য বুধবার দুপুর ১ টায় তানভীর কিন্ডার গার্টেন থেকে বেরিয়ে দোকন থেকে বিস্কুট কিনতে যায়। এসময় দ্রুত গতিতে আসা একটি মাইক্রোবাস তাকে চাপা দেয়। তানভীর প্রান বাাঁচাতে গাড়ির সামনের বাম্পারে ঝুলে যায়। এসময় গাড়িতে থাকা যাত্রী ও পথচারীরা গাড়ি থামিয়ে শিশুকে বাঁচানোর অনুরোধ করেন ড্রাইভারকে। কিন্তুু সে কোন কর্নপাত না করে আরও দ্রুত গতিতে শিশুটিকে রাস্তার সাথে পৃষ্ট করতে করতে ৫ শত গজ এগিয়ে গেল একটি রোডডিভাইডারের সাথে ধাক্কা খেয়ে তানভীরের রক্তাক্ত দেহ মাটিতে লুটিয়ে পরে। পরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয় তানভীরের।
এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায় গরীব হোসেন মহল্লার শেখ তাহির মিয়ার কন্যার বিয়ে হয় দেওয়ান দিঘীর উত্তর পাড় মহল্লার আতাবুর মিয়ার সাথে। তাদের কোল জুড়ে একিট পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। কিন্তুু কিছুদিন যেতে না যেতেই তাদের সংসারে দেখা দেয় বিশৃংখলা। একপর্যায়ে পুত্রকে নিয়ে পিত্রালয়ে বসবাস শুরু করেন তানভীরের হতভাগিনী মা। তিনিই তাঁর পুত্রকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে দিনরাত সেলাইয়ের কাজ করে উপার্জন করে কাবার যোগানোর পাশাপামি পাশর্^বর্তী এএইচএম কির্ডার গার্ডেনে পড়াশোনার জন্য ভর্তি করার। কিন্তুু তার বুকবাঁধা স্বপ্ন নিমেষেই কেড়ে নেয় ঘাতক চালক সাদ্দাম। স্কুল থেকে ফিরে আসে কোমলমতি শিশু তানভীরের রক্তমাখা লাশ। ছেলের নির্মম মৃত্যু মেনে নিতে পারছেননা হতভাগিনী মা। তিনি বারবার মুর্ছা যাচ্ছেন। অনেকের ধারনা তিনি পুত্রশোকে পাগল হয়ে গেছেন।

Print Friendly, PDF & Email