নাটোরে কমেছে মাস্ক ব্যবহারের প্রবণতাঃবাড়ছে করোনা আক্রান্তের ঝুকি

সুলতানুল আরিফিন কাজল,নাটোরঃ করোনা ভাইরাস সংক্রামক থেকে রক্ষা পেতে মাস্ক ব্যবহারের নির্দেশনা থাকলেও বড়াইগ্রাম উপজেলাসহ জেলার বিভিন্ন জায়গায় এমনকি শপিংমল গুলোতেও ঘুরে দেখা যায় অধিকাংশ লোকের মুখেই মাস্ক নাই।

করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ থেকে রক্ষা পেতে চিকিৎসকরা মাস্ক ব্যবহারের দিকেই বেশী জোর দিয়েছেন। কিন্তু দেশে করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর প্রথমদিকে সাধারণ মানুষ নিয়মিত মাস্ক ব্যবহার করলেও দিন দিন মাস্ক ব্যবহারের পরিমাণ কমে আসছে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের মানুষ স্বাস্থ্য বিধি মানতেই চাচ্ছে না।মাস্ক ব্যবহার না করেই অনাবাদে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

এতে করে করোনা ভাইরাস সংক্রামন মারাত্মক আকারে ছড়িয়ে পরার সম্ভবনা সৃষ্টি হচ্ছে। প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা   রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা প্রথম দিকে কঠোর অবস্থানে থাকলেও এখন যেনো চুপসে গেছে।

এখন আর  মাস্ক ব্যবহার করাসহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য প্রচার-প্রচারণা চালাতেও দেখা যায় না। আজ ১৮ই মে নাটোর জেলা শহরসহ  বড়াইগ্রাম  উপজেলার বনপাড়া,  আহম্মেদপু,  রাজাপুুর, লালপুর উপজেলা সদর,গোপালপুর, ওয়ালিয়া,বাগাতিপাড়া উপজেলা সদর,দয়ারামপুর, গুরুদাসপুর উপজেলা সদর, নাজিরপুরসহ জেলার বিভিন্ন হাট-বাজার এবং গ্রাম-গঞ্জেও  ঘুুুরে দেখা গেছে অনেকেই দলবদ্ধভাবে কেনাকাটা করছে আবার অনেকে বসে  অযথা আড্ডা মারছে। কারো মুখো তো মাস্ক নেই,আবার  কেউ মানছে না সামাজিক দূরত্ব ।

এছাড়া বেশীর ভাগ    দোকানদার নিজেই  মাস্ক-গ্লাভস  কিছুই    ব্যবহার করছে না।
মাস্ক না পরা ও গাদাগাদি হয়ে বসে থাকার        কারন জানতে চাইলে কয়েকজন বলেন, প্রথমদিকে আমরা নিয়মিত ব্যবহার করতাম। এখন আর ভালো লাগে না। মাস্ক ব্যবহার করলে কেমন যেন  একটা  অস্বস্তি লাগে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *