শায়েস্তাগঞ্জে পৌর মেয়র ছালেক মিয়ার বাড়ি লকডাউন

মঈনুল হাসান রতন হবিগঞ্জ ॥ হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোঃ ছালেক মিয়ার মালিকানাধীন একটি বাড়িতে বাড়াটিয়া সেল্স অফিসার সুমন মোহন্ত করোনা উপসর্গে মারা যাওয়ায় বাড়িটি লকডাউন ঘোষণা করেছেন উপজেলা প্রশাসন।

সোমবার (১ জুন) দুপুর ২টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমী আক্তার সরেজমিনে গিয়ে লকডাউন ঘোষণা করেন এবং নিহতের সাথে বসবাসকারী আরো পাঁচ যুবককে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন।
এসময় শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সেল্স অফিসার সুমন চন্দ্র মোহন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান।
এর আগে রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে সুমন চন্দ্র মোহন্তের স্ত্রী তার গ্রামে বাড়ি গাইবান্ধা থেকে এসে অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করেন।
নিহত সুমন মোহন্ত আরএফএল কোম্পানীর ইটালিয়ানো গ্রুপে সেল্স অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার কর্মস্থল ছিল শায়েস্তাগঞ্জ, চুনারুঘাট ও বাহুবল। তিনি শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে পৌর সভার মেয়র মোঃ ছালেক মিয়ার আলাদা একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- সুমন মোহন্ত গত কয়েকদিন যাবত করোনা উপসর্গে ভোগছিলেন। বিষয়টি গোপন রেখে বাসায় ছিলেন তিনি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমী আক্তার বলেন- হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা পাঁচ যুবক শায়েস্তাগঞ্জ তথা হবিগঞ্জের বাইরের বাসিন্দা। তারা বিভিন্ন কোম্পানীতে চাকুরি করেন এবং মেয়র সাহেবের আলাদা একটি বাসায় ভাড়াটিয়া। যেহেতু তারা নিহত সুমন মোহন্তের সাথেই থাকতেন তাই তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস আছে কি না পরীক্ষার ব্যবস্থা করার জন্য মেডিকেল অফিসার ডাঃ সাদ্দাম হোসেনে সাথে কথা বলেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *