রাত পেরোলেই বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের আনন্দ ভ্রমণ যাত্রা

এস এম খোকন ॥ পৃথিবীতে ছুটিহীন যে ক’টি পেশা রয়েছে তার মধ্যে সাংবাদিকতা বোধহয় শীর্ষে।

বর্তমান অনলাইন যুগের এই ‘ছুটিহীন’ ব্যাপারটি আরো পোক্ত হয়েছে। কারণ এখন প্রায় সংবাদ মাধ্যমই প্রিন্টের পাশাপাশি অনলাইন নির্ভর হয়েছে।

ফলে এখন একজন সাংবাদিককে দিনের বেশীরভাগ সময়ই দায়িত্ব পালন করতে হয়। এর মধ্যে অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিক হলে তা কতটা সিরিয়াস তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

সারা বছরের সাংবাদিকতায় হাঁপিয়ে উঠা একেবারেই স্বাভাবিক। তারপরও মিলে না ছুটি! তবে সাংবাদিকেরাওতো রক্তে-মাংসে গড়া মানুষ। অন্য পেশার মানুষেরাতো প্রায় সময়ই এদিক-ওদিক বেড়ায়। তা দেখে সাংবাদিকদের মন চায় বছরের একটা সময়ে হলেও দূরে কোথাও ঘুরে আসতে।

ব্যস্ততার কঠিন বাধা ডিঙিয়ে ১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত বানিয়াচং প্রেসক্লাবের আওতাভুক্ত সাংবাদিকদের নিয়ে আনন্দ যাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। এবার যাওয়া হচ্ছে অপরূপ সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি লক্ষীবাওর জলাবন ও ১৯৭১ সালে পাকসেনাদের হাতে মাকালকান্দি গ্রামের গণহত্যায় মৃত্যুবরণ কারীদের স্মরনে স্থাপিত মাকালকান্দি স্মৃতিসৌধ। রাত পেরোলেই আসছে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ।

তার জন্য ইতিমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সাংবাদিক উমর ফারুক শাবুল, এস এম খলিলুর রহমান রাজু, আরিফুর রেজা ও শাহিন মিয়াসহ ৪সদস্য বিশিষ্ঠ আয়োজক কমিটি।

আয়োজক কর্তৃপক্ষ জানান, আনন্দ ভ্রমণ ও নৌ-বিহার আয়োজন করেছে বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাব। এই আয়োজনে সঙ্গী হচ্ছেন বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাবের প্রায় ৩০ জন সাংবাদিক। দীর্ঘ প্রস্তুতি শেষে আগামীকাল ১৮ জুলাই সকালে যাত্রা হবে এই আনন্দ ভ্রমণের। সকাল ৭টায় উপজেলা সদরের স্থানীয় আদর্শবাজারস্থ নৌকাঘাট থেকে যাত্রা করা হবে।

জানা গেছে, দিন ব্যাপি কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে পত্রিকার ভূমিকা ‘শীর্ষক আলোচনা সভা, দর্শনীয় বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন ও সকাল ও দুপুরের ভোজন।

আনন্দ ভ্রমণের প্রধান সমন্বয়কারী বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এম খোকন বলেন, সারা বছর এক নাগাড়ে কাজ করতে গিয়ে সাংবাদিকেরা হাঁপিয়ে উঠে। অনলাইন সাংবাদিকদের অবস্থা আরো কাহিল।

এই হাঁপিয়ে উঠা শরীর-মনকে নব উদ্যেমে জাগিয়ে তুলতে কোথাও ঘুরে আসা দরকার। এই বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাব আনন্দ ভ্রমণের আয়োজন করেছে। সুষ্ঠুভাবে আনন্দ ভ্রমণ সম্পন্ন করার জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করছি। এই আনন্দ ভ্রমণ সবাই উপভোগ করবেন- এই প্রত্যাশা রইল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *