“আর নয় ভাবনা ঘরে বসে দিন জমির খাজনা” দেশের উন্নয়নে অংশ নিন,যথাসময়ে খাজনা দিন”

উত্তম কুমার পাল হিমেল,নবীগঞ্জ থেকেঃ “আর নয় ভাবনা,ঘরে বসে দিন জমির খাজনা”
দেশের উন্নয়নে অংশ নিন, যথা সময়ে খাজনা দিন” এই শ্রোগানের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ সরকার আগামী ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের ১ লা জুলাই থেকে প্রত্যেক নাগরিক ডিজিটাল বাংলাদেশে এখন জমির খাজনা দিন ঘরে বসে। খাজনা হলো জমি পরিচয়ের ভিক্তি ও হস্তান্তরের চালিকা শক্তি।
সরকার ভূমি উন্নয়ন কর (ভূমির খাজনা) ব্যবস্হাপনা ডিজিটাল করার কার্যক্রম শুরু করেছে। ভুমি অফিস সুত্রে জানাযায়, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩০ জুন, ২০২১ এর পর থেকে প্রচলিত (ম্যানুয়াল) পদ্ধতিতে আর ভূমি উন্নয়ন কর আদায় হবে না। এর পরিবর্তে ভূমি উন্নয়ন কর আদায় করা হবে অনলাইন আবেদনের মাধ্যমে।
এর ফলে ভূমি মালিকগন ইউনিয়ন ভূমি অফিসে না গিয়ে অর্থাৎ ঘরে বসে কিংবা দেশের বাহিরে বসেও ভূমি উন্নয়ন কর  প্রদান ও দাখিলা সংগ্রহ করতে পারবেন। নবীগঞ্জ উপজেলার সকল ইউনিয়ন ভূমি অফিস সমূহে মৌজাওয়ারী ভূমি মালিকের তথ্য অনলাইনে এন্ট্রি করার কার্যক্রম চলছে। অনলাইনে এন্টির জন্য প্রমানক জমির খতিয়ানের কপি,দলিল,পূর্ববর্তী দাখিলার কপি,পাসপোর্ট সাইজের ছবি,জাতীয় পরিচয়পত্র এবং মোবাইল নাম্বারসহ সংশ্লিষ্ট  ইউনিয়ন ভূমি অফিসে যোগাযোগ করে  ভূমি মালিকানা সংক্রান্ত তথ্য অনলাইনে এন্ট্রি দেওয়া নিশ্চিত করার জন্য
এ প্রচেষ্টা সফল করতে নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি সুমাইয়া মমিন সকলের সহযোগিতা কামনা ও অনুরোধ জানিয়েছেন । অন্যথায় ভূমি উন্নয়ন কর প্রদানে জটিলতাসহ ভূমি মালিকানা সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *