বানিয়াচংয়ে বিদ্যালয়ের নতুন ভবন উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে দুইটি বিদ্যালয়ের নতুন ভবন উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১০ নভেম্বর বুধবার সকাল ১০ ঘটিকায় সুরভী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাড়ে ১১ঘটিকায় মেধা বিকাশ উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবন উদ্বোধন শেষে উভয় স্থানে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের বেসরকারি সদস্যদের বিল ও বেসরকারি সিদ্ধান্ত প্রস্তাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব এডভোকেট মোঃ আব্দুল মজিদ খান।

দুইটি বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কাশেম চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসিনা আক্তার,বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম সরকার, মাধমিক শিক্ষা অফিসার কাওছার শোকোরান, উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ মিনারুল ইসলাম, বানিয়াচং আইডিয়েল কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার দাশ,আমবাগান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিপুল ভূষণ রায়, সন্দলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম আকবর চৌধুরী, আলীয়া মাদ্রাসার সাবেক ভাইস প্রিন্সিপ্যাল মওলানা আতাউর রহমান, মেধাবিকাশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভানু চন্দ্র চন্দ, সুরভী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অপূর্ব চন্দ, মনিরুল ইসলাম,উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মাহমুদ হোসেন খান মামুন প্রমুখ।

এছাড়া, বানিয়াচং উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি এস এম খোকন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি মজিদ খান বলেছেন, সকল মা’ই তার শিশুর প্রথম ও শ্রেষ্ঠ শিক্ষক। শিশুর জন্মের পরই তার মা যে শিক্ষা দেন, সে শিক্ষাই শিশু বেড়ে ওঠে। তাই মায়ের শিক্ষাই শিশুর প্রথম ও শ্রেষ্ঠ শিক্ষা। শিশুরা বিদ্যালয়ে পাঠের জন্য ৭/৮ ঘন্টা থাকলেও মায়ের কাছে থাকতে হয় দিনের বাকি সময়। তাই সন্তানের নৈতিকতা, চরিত্র, ব্যবহার, আচার আচরণসহ সকল বিষয়ে মায়ের শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম।

তিনি আরো বলেন, পৃথিবীতে যাঁরা মহামানব, মনিষী হয়েছেন তাঁদের মায়ের শিক্ষাই ছিল প্রেরণা ও আদর্শ। তিনি উপস্থিত মায়েদেরকে অনুরোধ জানিয়ে বলেন সন্তানদেরকে বিদ্যালয়ে পাঠানোর দায়িত্ব আপনার, খরচ যোগাবে শেখ হাসিনা সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *